Shopnobilap
একপায়ে দাঁড়িয়ে

একপায়ে দাঁড়িয়ে

বিংশ শতাব্দীতে প্রেম করাটা সহজ বিষয় ছিলোনা! মেয়েদের ক্ষেত্রে আরও ভয়ংকর যদি তা হয় অসম!

মেয়েটি তখন রংপুরে ইংলিশ সাহিত্য নিয়ে পড়তে এসেছে!
আর ছেলেটিকে দেখা যেতো রাস্তার মোড়ে,ডিপার্টমেন্টের সামনে, বান্ধবীদের আড্ডার পাশে!
১৯সেপ্টেম্বর পাপড়ি বের হবে,সেজেগুছে লাইব্রেরি রিকসা চলছে! হঠাৎ ধুম করে সেই ছেলেটি রিকসায় উঠে বসলো,বললো চেঁচামিচি করোনা! লাইব্রেরীতে আমিও যাবো,শর্ট স্টোরির উপর এ্যাসাইমেন্ট জমা দিতে হবে,তাইনা!
এতোসব জানেন কিভাবে?
জানতে হয়!!
এইতো এসে গেছি,নামেন!
ওর প্রতিটা পদক্ষেপে মনে হয় কেউ ভালোলাগাটা সেটিয়ে দিয়েছে। মই দিয়ে উঁচুস্থান থেকে বই পাড়া! কোন পৃষ্ঠা থেকে কতোটুকু নোট করতে হবে তাও বলা!
কেমনে জানে! আমি বিহ্বল,অস্ফুট আবেগে প্রকম্পিত! শেষ হলো!
বললো,সবকিছু লিখা শেষ করে রবীন্দ্রনাথ থেকে ছোট গল্পের সজ্ঞাটা দিতে!
ওর নাম ততক্ষণে জানাও হয়নি। শুধু মন্ত্রমুগ্ধের মতো কাজ করে যাচ্ছি!
বললাম নাম?
বলবো,একটু কাজ বাকি আছে। আমাকে ২০মিনিট সময় দিতে হবে।
ঘড়ি দেখে বললাম ওকে।
রিকশাকে বললো,চিড়িয়াখানা!
এরপর নিজেই বললো,আমি মৃদুল এইচএসসি দিয়েছি,বাহিরে পড়তে যাবো। ক্যামিস্ট্রিতে! যেদিন প্রথম দেখেছি তখন থেকেই ভালোলাগা আর ভালোবাসা কে অনেক যত্ন করছি, সুবাসিত হোক ফুলে,ফলে।
কিন্তু আপনি তো ছোট। সত্যিই আপনি রাজি ?
ও তখন একপায়ে দাঁড়িয়ে দেখালো!
আমি তো হাসতে হাসতে শেষ, বলি এক পায়ে রাজি!
ও বলে,তুমি কিছু বলো।
বলি, এ হয়না,মানুষ কি বলবে!
কিছু বলবে না,কত উদাহরণ নিবে বলো ?
ও তখনও একপায়ে দাঁড়িয়ে উত্তরের অপেক্ষায়!
বললাম রাজি! কি এক অনুভূতি খেলে গেলো ওর মাঝে! বলে তুমি আমার বন্ড! যখন ক্লাস সিক্সে পড়ি,তখন ১০মাইল পথ কখনো সাইকেল,কখনো রিকশায় করে গিয়ে তোমাকে দেখে এসেছি! তোমার ঐ হাসি আমায় বড্ড ভালোবাসতে সাহায্য করেছে।আমি সবচেয়ে সুখি।
এভাবে ১০বছর কাটলো ওর ক্যারিয়ার গঠণে। সিগারেটের টাকা বাঁচিয়ে ফোন! তখনকার ফোন।মনে হতো গালে গাল লাগিয়ে কথা বলছি,অথচ কতোদূর”চেন্নাই”!
আর চিঠি সাতদিন লাগতো আসতে!
কতদিন দেখা হয়না! কখনো একবছর,কখনো দুইবছর। চিঠিতে বলা থাকতো,কখন কথা হবে।কখন চারটা বাজবে। রিং হতেই হ্যালো বলে আর কিছু বলতে না পারা! এতো এতো মাইল দূরে থেকেও বুঝতাম,ওর দক্ষিণে দুটা জানালা,ওটা দিয়ে লম্বা তিনটা তারা দেখা যায়! ও অবাক,কেমনে বুঝি!
ভালোবাসা এমনই প্রতিটি হৃদস্পন্দন প্রতিটি না বলা কথার প্রকাশ!
আর যখন ও ফিরে এলো একেবারেই ফিরে পাবে বলে! বাধ সাধলো পরিবার!
আমি নাকি সুন্দর না!
ও চলে গেলো কানাডা!
আর আমি আজও তার প্রতীক্ষায় প্রহর গুণি, একপায়ে দাঁড়িয়ে! তার সাথে বিরবির করে কথা বলে, চোখের জল কে বাহিরে না ফেলে, টলমল করা জলকে ফেরত পাঠিয়ে, বুকে একরাশ ব্যথা নিয়ে আকাশে তাকিয়ে!
আসবে কি?

Broken Hart

Show Buttons
Hide Buttons
error: Don\'t Try To Copy Please !!