Shopnobilap

আমি সেই সাহেল

প্রিয় তিথি,
আমি সাহেল, আমি সেই সাহেল যে প্রতিদিন তোমার জন্য রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকে। আমি সেই সাহেল যাকে দেখলেই তোমার চোখ-মুখ রাগে কুঁচকে যায়। আমি ধরেই নিলাম আমাকে নিয়ে তোমার মনে কিছু প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে, আর তার উত্তর গুলো দেওয়ার জন্যই লিখছি। তুমি হয়তো ভাবছো কেনো আমি প্রতিদিন ওই সময় রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকি আর তোমার দিকে হ্যা করে তাকিয়ে থাকি? কারণ একটাই ভালোবাসি তোমাকে! তুমি হয়তো ভাবছো আমার কি আর কোনো কাজ নাই ঐখানে দাঁড়িয়ে থাকা ছাড়া? হুম কাজ আছে, আরো অনেক কাজ আছে আমার, আমি অনার্স ২য় বর্ষে পড়ছি। নিজের প্রয়োজন মেটাতে দুইটা টিউশানিও করি। আব্বুকে সাহায্য করার জন্যও কিছু কিছু কাজ করি, এত সব কিছু করার পরও ঐসময়টা বাঁচিয়ে রাখি তোমাকে একটু দেখার জন্য, কারণ তোমাকে ভীষণ ভালোবাসি! এখন হয়তো ভাবছো এভাবে কি ভালোবাসা হয়? আমি জানিনা ভালোবাসা কিভাবে হয়, আমি এটাও জানিনা ভালোবাসলে কিভাবে বলতে হয় আর কি করতে হয়। আমি শুধু জানি আমি তোমাকে ভালোবাসি! যদিবল কেন? আমি তাও জানিনা কেন তোমাকে এতটা ভালোবাসি। তবে তোমাকে ভীষণ ভালো লাগে, প্রথম যেদিন তোমাকে দেখেছিলাম আমার চোখের পলক পারছিলোনা, কেন জানি মনে হচ্ছিলো বার বার শুধু তোমাকেই দেখি। তুমিই সে যাকে আমি কল্পনায় সবসময় দেখি। সেই একই চোখ, সেই একই হাঁসি, সেই একই চলন। আমি তোমাকে যতই দেখছিলম ততই অবাক হচ্ছিলাম! আর মনে মনে ভাবছিলাম তোমাকেই তো এতদিন আমি খুজছিলাম, এত কাছে থাকা সত্ত্যেও চোখের সামনে আসোনি কেন এতদিন? তারপরে তোমার সম্পর্কে খোঁজ নিয়ে যতই যেনেছি ততই আরো বেশি ভালো লেগেছে তোমাকে। এখন হয়তো ভাবছো আমার পছন্দ হোক আর ভালোবাসা হোক তাতে তোমার কি? আমি কেন প্রতিদিন তোমাকে বিরক্ত করি? উত্তর হলো, আমি তো তোমাকে বিরক্ত করিনা। আমি কি কখনো তোমার পথ আটকে দাঁড়িয়েছি? কখনো কি তোমাকে বাজে কোনো ইশারা করেছি? বা বাজে কোনো কথা বলেছি? আবার তুমি যখন আমার দিকে তাকিয়ে রাগে চোখ-মুখ কুঁচকে ফেলো তখনওতো কিছু বলিনাই। তাহলে কেন তুমি আমাকে দেখলেই বিরক্ত হওয়? আমি কি এতটাই খারাপ দেখতে? আমার চরিত্র কি এতটাই বাজে যে তোমার চোখের বালি হয়ে গেছি?

এতক্ষন যা যা বললাম তার কিছুই যদি ঠিক নাহয়ে থাকে তাহলে হয়তো ভাবছো কাগজে লিখে কনো জানাচ্ছি? সামনা সামনি আসে বললেও তো পারতাম। হুম পারতাম, অনেক বার চেষ্টাও করেছি কিন্তু হয়নি, কারণ আমি এতটাই আবেগী হয়ে গেছি যে তোমাকে দেখলেই আমার সব কিছু এলোমেলো হয়ে যায়! কোনো কিছুই গুছিয়ে বলতে পারিনা। বাড়িতে আয়নার সামনেও অনেক বার চেষ্টা করেছি কিন্তু তাতেও লাভ হয়নি। তাই একরকম বাধ্য হয়েই লিখে জানাচ্ছি। এইটা লিতে গিয়েও অনেক কাগজ নষ্ট করেছি। দুঃক্ষিত!….. দুঃক্ষিত এই জন্য যে আমার স্বপ্নের মতো কদম ফুল দিয়ে তোমাকে ভালোবাসি বলতে পারলামনা! দুঃক্ষিত এই জন্য যে আমার মনের হাজারো কথা, কিন্তু শুধু ভালোবাসি বলে প্রকাশ করলাম! আমি আর কিছু বলতে চাইনা। বাকিটা তোমার ইচ্ছা। তুমি চাইলে এই কাগজটা ছিড়ে ফেলতে পারো আবার পুড়িয়েও ফেলতে পারো। তুমি চাইলে আমাকে দূর-ছাই ও করতে পারো আবার ভালোও বসতে পারো। আমি আর রাস্তায় দাঁড়াবোনা, তবে তুমি চাইলে আমি আবার আসতে পারি। একটাই শেষ অনুরোধ, তোমার চাওয়া টুকু শুধু আমাকে জানিয়ে দিয়ো! ভালো থেকো তিথি! ভীষণ ভীষণ ভালো থেকো।
ইতি
সাহেল

Maksudul Hasan

Show Buttons
Hide Buttons
error: Don\'t Try To Copy Please !!